কাঁঠাল বিঁচির ক্ষীর ভরা পুলি পিঠে – Bengal dessert dish with Jackfruit seeds

বাঙালিয়ানার সাথে ওতপ্রোত ভাবে জড়িয়ে পিঠেপুলি। সেই ছোটবেলার কুয়াশা মাখা লেপমুড়ি শীত আর ঘরে ঘরে পৌষ পার্বণের হিড়িক আজও একই সাথে উঁকি ঝুঁকি মারে স্মৃতির আনাচে কানাচে। ঠাকুরমা দিদিমার হাত ধরে সেই ধারা আজও বহমান। তবে আজ যে পুলির কথা আপনাদের জানাবো সেটি অতি আয়াশে বানিয়ে ফেলতে পারেন গরমেও। চাই কি জামাই ষষ্ঠী তে জামাই এর পাতে সাজিয়েও সবাই কে চমকে দিতে পারেন অনায়াসে।

 

উপকরণ : ( ২৫৩০ টার জন্য)

কাঁঠালের বিঁচি                   : ২০০ গ্রাম

ময়দা                                  : ২ কাপ ( যতটা দিলে লেচি টা বেলা যাবে)

নুন                                      : ২ চিমটে

দুধ                                       : ১ লিঃ

আমুল মিঠাই মেট              : ২০০ গ্রাম ( আপনার আন্দাজ মতো কমবেশি করতে পাড়েন। )

নারকেল কোড়া                 : ১ কাপ

চিনি                                    : ২ কাপ

গোটা গরমমশলার গুঁড়ো : ছোট চামচের অর্ধেক ।

 

jackfruit seeds

রন্ধন প্রণালী :

প্রথমে চিনির রস বানানোর জন্য একটি কড়াইতে ৬/৭ কাপ জল, ২ কাপ চিনি আর গরম মশালার গুঁড়ো দিয়ে ফোটাতে থাকুন যতক্ষণ না রসটা একটু চিটচিটে হচ্ছে। এটা কিছুক্ষণ পরপর চামচে তুলে পর্‌যবেক্ষণে রাখবেন। হয়ে গেলে আভেন থেকে নামিয়ে ঠাণ্ডা হতে দিন। শীতকালে রস টা নলেন গুড় দিয়ে করতে পাড়েন।

এবার চলে আসুন ক্ষীরের পুর এ। প্রথমেই নারকেল কোড়াটা মিক্সিতে পেস্ট করে নিন। এরপর সব দুধ কড়াই তে ঢেলে হালকা আঁচে ফোটাতে থাকুন। প্রায় যখন অর্ধেক হয়ে আসবে , আমুল মিঠাই মেট ও নারকেলের পেস্ট টি কড়াইতে ঢেলে দিন। মিশ্রণ টি নাড়িয়ে মাখােমাখাে হয়ে এলে নামিয়ে নিন। এটি বানানোর সময় ঘনােঘনাে মিশ্রণটি নাড়তে থাকবেন, নইলে পুড়ে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে।

এবার কাঁঠালের বিঁচির খোসা ছাড়িয়ে সমান্য কুচিয়ে প্রেসার কুকারে সিদ্ধ করে নিন। জল ঝরিয়ে রাখুন ভাল করে। এরপর বিঁচি, ময়দা আর নুন ভাল করে মেখে ছোট ছোট লেচি বানিয়ে নিন। লেচি আপনি হাতের তালুর সাহায্যেও গড়ে নিতে পারেন। এরপর লেচির মধ্যে বানানো ক্ষীরের পুর ভরে পুলি বানিয়ে ফেলুন।

puli

কড়াই আঁচে বসিয়ে সাদা তেল দিয়ে গরম করুন। তারপর একেএকে পুলি গুলো এপিঠ ওপিঠ ভাজুন। হালকা বাদামী রঙ ধরলে নামিয়ে রসে ঢেলে দিন। এটিকে ৭ – ৮ ঘণ্টা রেখে দিন।

lequid sugar dip puli
রসে ডোবান পুলি                                                                                                                                                                                                                            ছবি : তুহিনা পাল

এখানে বলি, আপনি যদি ননস্টিক প্যান ব্যবহার  করেন ভাজার জন্য দেখবেন অনেক কম তেল লাগছে। প্রথমেই ২ কাপ তেল ঢেলে নেবেন, দেখবেন সব পুলি ভাজার পরেও অনেক তেল রয়ে গেছে। সেইজন্য আলাদা করে তেলের পরিমাণ টা বলিনি।

ব্যস আর কিসের অপেক্ষা ? আপনার পুলি তৈরি। এবার আপনি ই ঠিক করুন,  এই পুলি জামাই বাবাজীবনের জন্য আলাদা করে তুলে রাখবেন না শীতের নলেন গুড়ের জন্য।

         ~ তুহিনা পাল

তবে সবাই খাওয়ার পর আমাদের জানাতে কিন্তু ভুলবেন না কেমন খেতে লাগলো ।

 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *