ভালবাসা কারে কয়

আসলে ভীষণভাবে বেঁচে থাকার জন্য একটা ভীষণরকম জাঁকানো যন্ত্রণার দরকার, যাকে জাপটে ধরে সারাটা জীবন “বেঁচে আছি, ভালো আছি” বলা যায়…

শ্রাবণ বোস

যারা মুখ বুজে আমাদের রাগ, ঘেন্না, পছন্দ, অপছন্দ সবটা সহ্য করে, আমাদের গোপন থেকে গোপন সত্যিগুলো লুকিয়ে রাখে, তাদের কখনো আমরা ভালোবাসি না।

বড়জোড় তাদের সাথে কথা বলে শান্তি পাই টুকটাক, তাদের সাথে কথা বলতে ভালোলাগে, অনেকসময় দয়া করে “ভালোবাসি” বলে থাকি ব্যস…

যারা সবটা উপুড় করে আমাদের ভালোবাসে, আমরা তাদেরও কখনোই ভালোবাসতে পারিনা, বড়জোড় শ্রদ্ধা করতে পারি…

আমরা তাদেরকেই ভালোবাসি, তাদের জন্য সবটা খালি করে দিতে পারি একঝটকায়, যাদেরকে আমরা ভালোবাসতে চাই, যাদের কাছে আমরা ঠকতে চাই। আমরা আগের থেকেই ঠিক করে নিই যে এই মানুষটা আমাদের জন্য পারফেক্ট! একজনকে যাচাই না করেই ভেবেনি আমাদের আগলে রাখার ক্ষমতা এই মানুষটার আছে….

যারা হয়তো পাত্তাও দেয়না আমাদের, তিনচারদিন বাদে একবার খোঁজ নেয়, আমরা তাদের জন্যই অপেক্ষা করি। ভাত খেতে খেতে তাদের কথা ভাবি, একটা রিংটোন, একটা গলার আওয়াজ আর কিচ্ছু চাইনা…

একবার সে “শুনছো” বলে ডাকলে কেমন যেন মাতাল মাতাল লাগে নিজেকে, তারা যত দূরে ঠেলে দেয়, ততই কাছে যাওয়ার তীব্রতা বেড়ে যায়, জেদ চেপে যায় মাথায়। যতই তারা আঘাত করে, ততই আরো আরো বেশি করে ভালোবেসে ফেলি, দূর থেকে তাদের ছুঁতে চাই। তাদের থেকে পাওয়া ব্যথা গুলোকে ভেতর ভেতর যাপন করি…

তারা বারবার অপমান করে তাড়িয়ে দিলেও আমরা কোনোদিন অপমান করতে পারি না, বরং তাদের অপমান পাওয়ার জন্য অপেক্ষা করি….

আসলে ভীষণভাবে বেঁচে থাকার জন্য একটা ভীষণরকম জাঁকানো যন্ত্রণার দরকার, যাকে জাপটে ধরে সারাটা জীবন “বেঁচে আছি, ভালো আছি” বলা যায়…

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *